সিন্ধুনদের পাথুরে প্রকৃতির জ্যামিতি থেকে জলবায়ুর ইতিহাস প্রকাশিত

তন্ময় দও Jun 26, 2020 - Friday ময়নাগুড়ি 227


ভারতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রকের তরফে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে,কেন্দ্রের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি দপ্তরের স্বশাসিত সংস্থা দেরাদুণের ওয়াদিয়া ইন্সটিটিউট অফ হিমালয়ান জিওলজি একদল গবেষক হিমালয়ের লাদাখে জ্যামিতিক তথ্য সংগ্রহ করে সিন্ধুনদের জলবায়ু সংক্রান্ত ইতিহাস খুঁজে পেয়েছেন। নদীর গতিপথে নুড়ি-পাথর সঞ্চিত হওয়া থেকে এই তথ্য পাওয়া গেছে। গবেষকরা নদীগর্ভে পলি সঞ্চয় বৃদ্ধির হার একটি নির্দিষ্ট সময়ে পরীক্ষা করেছেন। পাহাড় থেকে নদীর জলের সঙ্গে নুড়ি-পাথর নীচে নেমে আসে। এই নদী যুগের পর যুগ ধরে মানব সভ্যতা তৈরিতে সাহায্য করেছে। নির্দিষ্ট সময়ে নদী উপত্যকায় পলি সঞ্চয়ের ফলে তার উচ্চতা বৃদ্ধি পেয়েছে। বিজ্ঞানীরা অবশ্য এখনও যে বিষয়ে মতৈক্যে পৌঁছতে পারেননি, সেটি হল – নদীর জলের সঙ্গে বৃষ্টির জল ও হিমবাহ গলে সেই জল মিশে নদীর জলের স্রোত বাড়িয়ে তোলে নাকি শুষ্ক মরশুমে পলির পরিমাণ বৃদ্ধি পাওয়ায় গতিপথে বাধা সৃষ্টির ফলে জল প্রবাহ বৃদ্ধি পায়।





গবেষকরা নদীগর্ভে নুড়ি-পাথর সঞ্চিত হওয়ার তথ্য সংগ্রহ করে সিন্ধুনদের জলের স্রোতের ধারা সম্পর্কে একটি ধারণা পেয়েছেন। তাঁরা দেখেছেন, গ্রীষ্মকালে হিমালয় থেকে নেমে আসা নদীগুলি জলস্রোতে হিমবাহ গলে নদীর গতিবেগ বৃদ্ধি পায় এবং এরপরই নদীগর্ভে পলি সঞ্চিত হয়।

আপনাদের মূল্যবান মতামত জানাতে কমেন্ট করুন ↴

সবার আগে খবর পেতে , পেইজে লাইক দিন

আপনার পছন্দ

বিজ্ঞাপন
PMJOK

আরও খবর

বিজ্ঞাপন
PMJOK