বর্ষা শুরু হতে না হতেই সেভকের পাহাড়ি রাস্তায় ধস পড়া শুরু। দ্বিতীয় সেতুর দাবীতে সোচ্চার ডুয়ার্সবাসী।

নিজস্ব সংবাদদাতা Jun 23, 2021 - Wednesday মালবাজার 66




সবেমাত্র বর্ষা শুরু হয়েছে। আরও তিনমাস বর্ষন চলবে। বর্ষা শুরু হতেই সেভকের পাহাড়ি এলাকায় ধস পড়া শুরু হয়েছে। এতেই যানবাহন চলাচলে বিঘ্ন হয়েছে। যানবাহন চলাচলে অসুবিধা হতেই দ্বিতীয় সেতুর দাবীতে আবারও সোচ্চার ডুয়ার্সের মানুষ।

সোমবার রাতের পাহাড়ি এলাকায় বৃষ্টি হয়। মঙ্গলবারও খানিকটা বৃষ্টি হয়। এতেই পাহাড়ি এলাকায় কয়েক জায়গায় ধস পড়ে। যানবাহন চলাচলে অসুবিধার সৃষ্টি হয়। যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন না হলেও যান চালকদের মধ্যে উদ্বেগ তৈরি হয়।বর্ষার মধ্য সময়ে ধসে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ার আশংকা দেখা দিয়েছে।

সেভকের পাহাড়ি এলাকায় বর্ষার মরসুমে মাঝে মধ্যেই ধস পড়ে। গত কয়েক বছর ধরে এই ধসের প্রবনতা বেড়েছে।গত বছরও কয়েকবার ডুয়ার্সের থেকে শিলিগুড়ির যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছিল।এছাড়াও করনেশন সেতুর অবস্থা ভালো নয়, এই কারণেই দ্বিতীয় এক সেতুর দাবীতে ডুয়ার্সের মানুষ সোচ্চার হয়ে উঠেছে।

সেভকের পাহাড়ি এলাকায় রেলব্রিজের পাশ দিয়ে দ্বিতীয় এক সেতুর দাবীতে গত কয়েক বছর ধরে আন্দোলন শুরু করেছে ডুয়ার্স ফোরাম ফর সোশ্যাল রিফর্ম নামের এক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা। এই আন্দোলনের সাথে সহমত পোষণ করেছেন ডুয়ার্সের সাংসদ, বিধায়ক থেকে সাধারণ মানুষ।এমনকি দ্বিতীয় এক সেতুর প্রয়োজনীয়তা নিয়ে কিছুদিন আগে আশার কথা শুনিয়েছেন মাল বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক তথা রাজ্যের অনগ্রসর উন্নয়ন ও আদিবাসী কল্যাণ দপ্তরের মন্ত্রী বুলু চিকবরাইক।

ডুয়ার্স ফোরাম ফর সোশ্যাল রিফর্মের সম্পাদক চন্দন রায় বলেন, প্রতিবছর বর্ষার সময়ে ধস পড়ে শিলিগুড়ি থেকে ডুয়ার্সের মাঝে যাতায়াতের সমস্যা হয়। টানা কয়েক দিন যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। নিত্যযাত্রী ও রোগী বহনকারী এম্বুলেন্স অনেক পথ ঘুরে গজালডোবা হয়ে যাতায়াত করে। এ ভোগান্তি ভোগে ডুয়ার্সের মানুষ। এবছর বর্ষা শুরু হতেই ধস পড়া শুরু হয়েছে।এখনো জুলাই ও আগস্টের বর্ষন বাকি রয়েছে।আমাদের আন্তরিক চাহিদা এক দ্বিতীয় সেতুর।

আপনাদের মূল্যবান মতামত জানাতে কমেন্ট করুন ↴

সবার আগে খবর পেতে , পেইজে লাইক দিন

আপনার পছন্দ

বিজ্ঞাপন
PMJOK

আরও খবর

বিজ্ঞাপন
PMJOK