চা-শ্রমিকদের মজুরি বাড়ল উচ্ছ্বসিত শ্রমিকরা মুখ্যমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানালো

দেবজ্যোতি চ্যাটার্জি Jan 21, 2021 - Thursday মালবাজার 114


আবার এক ধাপ মজুরি বাড়লো উত্তরবঙ্গের চা-শ্রমিক দের। ১৭৬ টাকা থেকে ২০২ টাকা দৈনিক মজুরি হয়ে গেল।এতেই উচ্ছ্বসিত উত্তরবঙ্গের চা বলয়ে থাকা চা শ্রমিকরা। রাজ্য সরকারের এই নির্দেশে মুখ্যমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানালো একাধিক শ্রমিক সংগঠন থেকে প্রান্তিক চা শ্রমিকরা।


চা-শ্রমিকদের নুন্যতম মজুরি নিয়ে গত কয়েক শ্রমিক সংগঠন গুলির সাথে মালিকপক্ষ গুলির আলোচনা চলছে । রাজ্য সরকার উদ্যোগে এক কমিটিও গঠন করা হয়েছে। সেই কমিটি দফায় দফায় আলোচনা ও পর্যালোচনা করে চলছে। মন্ত্রী পর্যায়ে একাধিক বৈঠকও হয়েছে। আগামী ১১ফেব্রুয়ারিতে আবারও বৈঠক আছে। প্রক্রিয়া চলাকালীন রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে এক নির্দেশ মাধ্যমে ইন্টেরিম হিসাবে শ্রমিকদের ২৬টাকা ও স্টাফ, সাবস্টাফদের গত ডিসেম্বর মাসে যে বেতন পেয়েছে তার ১৫শতাংশ হারে বৃদ্ধির কথা ঘোষণা করা হয়েছে । গত ১ জানুয়ারি থেকে এই মজুরি দেওয়ার কথা জানানো হয়েছে ।


রাজ্য সরকারের এই ঘোষণার পর একাধিক শ্রমিক সংগঠন গুলি মুখ্যমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানিয়েছে। জলপাইগুড়ি জেলা পরিষদের মেন্টর তথা তৃনমুল কংগ্রেস প্রভাবিত শ্রমিক সংগঠনের নেতা অমরনাথ ঝাঁ বলেন, চা-শ্রমিক দের নুন্যতম মজুরি আলোচনা চলছে। আগামী ১১ ফেব্রুয়ারী বৈঠক আছে। এরই মধ্যে এই ঘোষণা খুবই ভালো খবর। শ্রমিকদের উপকার হবে। এজন্য আমরা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানাচ্ছি। আমাদের রাজ্য সরকার চা-শ্রমিকদের প্রতি যে আন্তরিক সেটা পরিস্কার। মেটেলি ব্লকের নাখাটি চাবাগানের শ্রমিক বেলা কুজুর বলেন, আগে বামফ্রন্টের আমলে তিন বছর পর পর ২ থেকে ৪ টাকা মজুরি বাড়তো। এখন এক ধাক্কায় ২৬ টাকা বাড়লো। গত ২০১৮ সালে শেষ মজুরি বেড়ে ১৭৬ টাকা হয়েছিল। এই মজুরি বৃদ্ধির জন্য আমরা মুখ্যমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানাচ্ছি।আশা করি মুখ্যমন্ত্রী চেষ্টায়


চা-শ্রমিকদের চা শ্রমিকদের নুন্যতম মজুরি নির্ধারিত হবে।


এই মজুরি বৃদ্ধির কথা ঘোষণায় বৃহস্পতিবার মুল নিবাসী আদিবাসী বিকাশ পরিষদ নামের এক রাজ্যের শ্রমমন্ত্রী মলয় ঘটককে স্বাগত জানিয়ে এক বাইক র‍্যালি করে। নাগরাকাটা বাইপাস এলাকায় মন্ত্রিকে বিশেষ ভাবে সংবর্ধনা জানানো হয়। মুখ্যমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানানো হয়।সেখানে উপস্থিত ছিলেন উল্লেখ্য আদিবাসী

সংগঠনের সভাপতি রাজেশ লাকরা, ডুয়ার্স ডিসকাভারি সোসাইটির পক্ষে সঞ্জয় কুজুর, তৃনমুল নেতা লতিফুল ইসলাম প্রমুখ। মন্ত্রী শ্রী ঘটক সেখানে বলেন, রাজ্য সরকার এবং মুখ্যমন্ত্রী যে চা-শ্রমিকদের প্রতি আন্তরিক উন্নয়ন করার চেষ্টা করে চলছে । শ্রমিকদের উন্নয়নে একাধিক প্রকল্প নিয়েছেন। বিজেপি সহ অন্যান্য দলগুলো শুধু ভাওতা দিয়ে চলছে।

আপনাদের মূল্যবান মতামত জানাতে কমেন্ট করুন ↴

সবার আগে খবর পেতে , পেইজে লাইক দিন

আপনার পছন্দ

বিজ্ঞাপন
PMBJK DHUPGURI

আরও খবর

বিজ্ঞাপন
PMJOK
HS02